সংবাদ শিরোনামঃ
February 26, 2020 - যশোর শহরতলীর ছাত্রাবাসে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র, গুলি ও মাদকসহ তিন কলেজছাত্রকে আটক করেছে পুলিশ।
February 25, 2020 - রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ইমন (১৮) নামে এক পোশাক শ্রমিককে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে হত্যা।
February 25, 2020 - আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা এনামুল হক এনু ও তার ভাই রুপন ভূঁইয়ার আরেক বাড়িতে অভিযান চালিয়ে কয়েক কোটি টাকা ভর্তি সিন্ধুক এবং গয়না উদ্ধার করেছে র‌্যাব।
February 24, 2020 - দিনাজপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্য্যালয়ে দুদক ‘র অভিযান।
February 24, 2020 - রাজধানীর হাতিরঝিলে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে রাকিব হাসান শিপন (১৮) নামে এক যুবক নিহত।
February 22, 2020 - হযরত শাহজালাল আনতর্জাতিক বিমানবন্দর হতে গোপনে দেশত্যাগের প্রাক্কালে ০৪ জন অবৈধ অর্থ পাচারকারী ও জাল টাকা সরবরাহকারী গ্রেফতার। বিপুল পরিমান দেশী-বিদেশী মুদ্রাসহ জাল টাকা উদ্ধার।
February 22, 2020 - আন্ডারওয়ার্ল্ডের শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের অন্যতম সহযোগী মাজহারুল ইসলাম ওরফে শাকিলকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।
February 18, 2020 - দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে দুই পক্ষের গোলগুলিতে সাবেক পৌর কাউন্সিলর নিহত।
February 17, 2020 - কুমিল্লায় মানব পাচারকারী চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেফতার,৩ রোহিঙ্গা উদ্ধার।
February 17, 2020 - ঢাকার আশুলিয়ায় শেলী সুলতানা (৪৩) নামে গৃহবধূকে ছুরিকাঘাতে হত্যা, আটক ১।
February 15, 2020 - সাভারের আশুলিয়ায় যুবককে গলা কেটে হত্যা করে মোটরসাইকেল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা।
February 14, 2020 - শরীয়তপুর জেলা পাসপোর্ট অফিসে দুদক টিমের অভিযান।
February 13, 2020 - স্কুল ছাত্রীকে বখাটেরা উত্তক্ত করার সময় এলাকা বাসি ধরে পুলিশে সোপর্দ।
February 13, 2020 - ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার সাতৈর ইউনিয়নে গাঁজার গাছসহ ১ যুবক আটক।
February 12, 2020 - বেপরোয়া কিশোর গ্যাং, গ্যাং কালচারে কাবু কুমিল্লা।
February 11, 2020 - সকল সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের মোবাইল ফোন, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের নজরদারি করবে দুদক।
February 10, 2020 - ঝালকাঠির পিপি হত্যা মামলায় ৫ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট।
February 10, 2020 - খন্দকার এনায়েত উল্লার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করেছে দুদক।
February 10, 2020 - রাজধানীর খিলগাঁওয়ে সবুজবাগ এলাকায় জঙ্গি সন্দেহে ৫ জনকে আটক।
February 8, 2020 - চার বছরেও অন্ধকারে ‘কে ওয়াই স্টিল মিলস লি:’ এর নিন্মমানের টিন সরবরাহ নিয়ে দুদুকের তদন্ত।
February 8, 2020 - নারায়ণগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিস ! ভূমি জালিয়াতির আখড়া।
February 8, 2020 - ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে নিখোঁজের ২১ দিন পর ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিনের লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৬।
February 7, 2020 - ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।
February 7, 2020 - সারাদেশে দেড় হাজারের ও বেশি নারী জঙ্গী এখন সক্রিয় নব্য জেএমবির নারী শাখার প্রধান আসমানী খাতুন ওরফে আসমা।
February 5, 2020 - আট বছর যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন! কিন্তু নিয়মিত বেতন-ভাতাসহ সরকারি সকল সুবিধা ভোগ করে চলেছেন।
February 5, 2020 - সবচেয়ে বেশি অবৈধ বিদেশি শ্রমিক কাজ করে পোশাক খাতে।
February 5, 2020 - জামিন জালিয়াতি চক্রের মূলহোতাসহ ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে -সিআইডি।
February 5, 2020 - চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে ফার্মেসিতে ময়দা দিয়ে বানানো সেকলো ক্যাপসুল !
February 5, 2020 - নাটোর জেলার বরাইগ্রামে হাসপাতাল ও ডায়গনস্টিক সেন্টারের আড়ালে মাদক ও নারী দেহের রমরমা বাণিজ্য !
February 4, 2020 - খুলনা জেলা পরিষদে দুদকের অভিযান।
February 4, 2020 - নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চার্জ গঠন শুনানি ৩১ মার্চ।
February 3, 2020 - সিলেটে অগ্নেয়াস্ত্রসহ এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।
February 3, 2020 - দুদকের মামলায় জিকে শামীমের ৪ সহযোগীর জামিন দেননি হাইকোর্ট।
February 3, 2020 - প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে অপ্রয়োজনীয় ভাবে সেতু নির্মাণ করে রাষ্ট্রীয় টাকার অপচয় করা হচ্ছে। -দুদক
February 3, 2020 - ফেনীতে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসকারী চক্রের সদস্য আটক করেন র‍্যাব।
February 1, 2020 - সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দায়িত্ব পালনরত সংবাদকর্মীর উপর হামলা।
February 1, 2020 - জয়পুরহাট সদর উপজেলার চকশ্যাম গ্রামে বলাৎকারের ঘটনা ঢাকতেই শিশু ইকরামকে হত্যা।
January 31, 2020 - প্রাইম মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের সনদ নিয়ে আমানত ব্যবসা, ১৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়।
January 30, 2020 - রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গামছা পার্টির দুই সদস্য নিহত।
January 30, 2020 - নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের সাবেক জিএম সৈয়দ ফারুক আহম্মদ সহ ২৬ জনকে তলব করেছে দুদক।
ফ্রিডম পার্টি থেকে উত্থান এর পরে ছাত্রদল যুবলীগ নেতা খালেদ ভূঁইয়ার

ফ্রিডম পার্টি থেকে উত্থান এর পরে ছাত্রদল যুবলীগ নেতা খালেদ ভূঁইয়ার

প্রথমে ফ্রিডম পার্টির ক্যাডার, এরপর ছাত্রদলের নেতা। ছাত্রদল থেকে যুবলীগে যোগদান করেই পদ পেয়ে যান খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ পেয়েই অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠে ক্যাসিনো (জুয়ার আসর) পরিচালনার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিনের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। শীর্ষ সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত এবং একাধিক হত্যার ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকা ও ডাকাতি মামলার আসামি হয়েও খালেদ কিভাবে যুবলীগের পদ পেয়েছে তা নিয়েও রয়েছে নানা প্রশ্ন। অস্ত্রব্যবসা, মাদক, টেন্ডারবাজি, চাঁদাাবজিসহ সব অপকর্মেই জড়িত ছিল খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। খালেদের অপকর্মের সহযোগী ছিল ক্ষমতাসীন দলের অনেক নেতা। এমনকি বিদেশে অবস্থানকারী পুরস্কারঘোষিত শীর্ষ সন্ত্রাসীদের সঙ্গেও রয়েছে খালেদের সখ্যতা এবং বাণিজ্য। ঢাকার আন্ডারওয়ার্ল্ডের একটি অংশ ছিল খালেদের নিয়ন্ত্রণে।

এদিকে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে অস্ত্র, মাদক ও অর্থপাচারের অভিযোগে গুলশান থানায় ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাবের পক্ষ থেকে এসব মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসব মামলায় খালেদকে গ্রেফতার দেখিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১৪ দিনের রিমান্ড হেফাজতে আনার আবেদন জানিয়ে পুলিশ আদালতে পাঠিয়েছে তাকে। এর আগে রাতভর র‌্যাব হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে খালেদ ভূঁইয়াকে বৃহস্পতিবার দুপুরে গুলশান থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব ৩।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানায়, শীর্ষ সন্ত্রাসী থেকে যুবলীগ নেতা বনে যাওয়া খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার উত্থান আলাদিনের চেরাগ পাওয়ার মতো। যুবলীগের পদ পাওয়ার পর ঢাকা দক্ষিণে আন্ডারওয়ার্ল্ডের নিয়ন্ত্রণ করত খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। অস্ত্র ও মাদক ব্যবসার পাশাপাশি অবৈধ জুয়ার আসর থেকে খালেদের প্রতিমাসে আয় ছিল কোটি টাকারও বেশি। এসব অর্থ বিদেশে পাচার করত খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। ডজনখানেক হত্যা মামলার আসামি হলেও যুবলীগের পদধারী হওয়ায় খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া ছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে।

গুলশানের উপপুলিশ কমিশনার সুদীপ চক্রবর্ত্তী জানান, যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে গুলশান থানায় অস্ত্র, মাদক ও অর্থ পাচারের অভিযোগে পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে র‌্যাবের পক্ষ থেকে। মামলায় খালেদকে গ্রেফতার দেখিয়ে বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাকে জিজ্ঞসাবাদের জন্য রিমান্ড হেফাজতে আনার অনুমতি চাওয়া হয়েছে। মামলাগুলো পুলিশ বিভাগ তদন্ত করবে। র‌্যাবের একটি সূত্র জানায়, ফকিরাপুলে অবৈধ ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) হাতে গ্রেফতার হওয়া ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া দেশ ছেড়ে পালানোর পরিকল্পনা করেছিল। বিদেশে পলাতক একাধিক শীর্ষ সন্ত্রাসীর সঙ্গে খালেদের সখ্য ছিল। রাজধানীতে অস্ত্র, মাদক এবং জুয়ার আসর পরিচালনা করে যে অর্থ পেতেন তার একটি ভাগ শীর্ষ সন্ত্রাসীদের কাছেও পাঠাতেন। এছাড়া তার নিয়ন্ত্রিত ক্যাসিনো থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কতিপয় সদস্য, রাজনৈতিক নেতারাও ভাগ পেত। বুধবার গ্রেফতার হওয়ার পর র‌্যাবের কাছে বেশ চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক সূত্র জানায়, খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। মতিঝিল-ফকিরাপুল ক্লাবপাড়ায় ক্যাসিনো থেকে শুরু করে কমপক্ষে সাতটি সরকারি ভবনে ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণ ও সরকারি জমি দখলের মতো নানা অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। ২০১২ সালের পর রাজধানীর মতিঝিল, ফকিরাপুল এলাকায় কমপক্ষে ১৭টি ক্লাব নিয়ন্ত্রণে নেয় এই যুবলীগ নেতা খালেদ। এরমধ্যে ১৬টি ক্লাব নিজের লোকজন দিয়ে আর ফকিরাপুল ইয়াং ম্যানস নামের ক্লাবটি সরাসরি তিনি পরিচালনা করেন। প্রতিটি ক্লাব থেকে প্রতিদিন কমপক্ষে এক লাখ টাকা নেন তিনি। এসব ক্লাবে সকাল ১০টা থেকে ভোর পর্যন্ত ক্যাসিনোতে চলে জুয়া। সেখানে মাদকের ছড়াছড়ি। পাওয়া যায় ইয়াবাও। খিলগাঁও-শাহজাহানপুর হয়ে চলাচলকারী লেগুনা ও গণপরিবহন থেকে নিয়মিত টাকা দিতে হয় খালেদকে। প্রতি কোরবানির ঈদে শাহজাহানপুর কলোনি মাঠ, মেরাদিয়া ও কমলাপুর পশুর হাট নিয়ন্ত্রণ করেন তিনি। খিলগাঁও রেল ক্রসিংয়ে প্রতিদিন রাতে মাছের একটি হাট বসান এই নেতা। সেখান থেকে মাসে কমপক্ষে এক কোটি টাকা আদায় করেন তিনি। একইভাবে খিলগাঁও কাঁচাবাজারের সভাপতির পদটিও দীর্ঘদিন তিনি ধরে রেখেছেন। শাহজাহানপুরে রেলওয়ের জমি দখল করে দোকান ও ক্লাব নির্মাণ করেছেন। মতিঝিল, শাহজাহানপুর, রামপুরা, সবুজবাগ, খিলগাঁও, মুগদা এলাকার পুরো নিয়ন্ত্রণ যুবলীগ নেতা খালেদের হাতে। এসব এলাকায় থাকা সরকারি প্রতিষ্ঠান রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক), ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, রেলভবন, ক্রীড়া পরিষদ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, যুব ভবন, কৃষি ভবন, ওয়াসার ফকিরাপুল জোনসহ বেশিরভাগ সংস্থার টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ করে। ‘ভূঁইয়া অ্যান্ড ভূঁইয়া’ নামের প্রতিষ্ঠানটি দিয়ে সে তার কার্যক্রম পরিচালনা করে। এই প্রতিষ্ঠানের নামেই অধিকাংশ টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ করা হয়। যুবলীগ নেতা খালেদের বাড়ি কুমিল্লা। কলেজে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। পুলিশের গুলিতে তার একটি পা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেই থেকেই তাকে ল্যাংড়া খালেদ নামেই অনেকে চেনেন। ১৯৮৭ সালে ফ্রিডম মানিক ও ফ্রিডম রাসুর নেতৃত্বে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর বাড়িতে হামলা হয়। এই দুই নেতার হাত ধরেই খালেদের উত্থান। ২০০২ সালে বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসের ভাই মির্জা খোকনের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিল খালেদ। ২০১১ সালে মোহাম্মদপুরে ঢাকা মহানগর উত্তরে সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দিন বাবু ওরফে লীগ বাবু খুন হয়। ওই খুনের সঙ্গে খালেদের সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে অভিযোগ আছে। দুবাইয়ে আত্মগোপন করা শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের সঙ্গে তার নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। দুবাই ও সিঙ্গাপুরে জিসানের সঙ্গে যুবলীগ দক্ষিণের এক শীর্ষ নেতাসহ খালেদকে চলাফেরা করতেও দেখেছেন অনেকে। সর্বশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সিঙ্গাপুরে হোটেল মেরিনা বেতে জিসান, খালেদ ও যুবলীগের ওই শীর্ষ নেতার মধ্যে ক্যাসিনো এবং ঢাকার বিভিন্ন চাঁদার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বৈঠক হয়। সেখানে জিসান তাদের কাছ থেকে ৫ কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে। এ নিয়েই খালেদ ও যুবলীগের ওই শীর্ষ নেতার মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। যার প্রেক্ষিতে যুবলীগের ওই শীর্ষ নেতাকে সরিয়ে দিতে একে-২২ রাইফেলসহ ভারী আগ্নেয়াস্ত্রও আনে খালেদ। যে অস্ত্রগুলো পরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ উদ্ধার করে।

গোয়েন্দা সংস্থার একাধিক কর্মকর্তা বলেন, খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটটসহ পাঁচ জন সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সকালের একটি ফ্লাইটে দেশ ছাড়তে চেয়েছিল। ভোরে তারা সে উদ্দেশ্যে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও যায়। কিন্তু বিমানবন্দরেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়ার আতঙ্কে ফিরে আসে। ফেরার পথে যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াসহ পাঁচ জন একসঙ্গেই ছিল। পরে দুপুরের দিকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় গিয়ে যে যার মতো আলাদা হয়ে যায়। সেখান থেকে খালেদ বিকেল ৩টা ৩১ মিনিটে ফিরে যায় তার বাসায়। সেখান থেকে সম্রাট কাকরাইলে নিজ অফিসে অবস্থান নেয়। গ্রেফতার এড়াতে দের শতাধিক ক্যাডার বাহিনীর পাহাড়ায় কাকরাইলের অফিসেই অবস্থান নিয়ে থাকে সম্রাট। আর খালেদ চলে যায় তার বাসায়। বাসা থেকে দ্রুত সরে যাওয়ার কথা থাকলেও র‌্যাব তার বাসা ঘিরে ফেলায় খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া আর বের হতে পারেনি। পরে র‌্যাব তার বাসায় তল্লাশি চালিয়ে অবৈধ অস্ত্র, মাদক ও নগদ অর্থ পায়। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ভারতে পলাতক বিএনপিপন্থি পুরস্কারঘোষিত শীর্ষ সন্ত্রাসী জাফর আহমেদ মানিকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার। সেই সম্পর্কে ভাঙন ধরায় তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে দুবাইয়ে পলাতক আরেক শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের সঙ্গে। তার সহযোগিতা নিয়ে টেন্ডারবাজিতে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করতে শুরু করে খালেদ। সেই টাকার ভাগ নিয়মিত পৌঁছে যেত জিসানের কাছে। ‘আন্ডারওয়ার্ল্ডে’ খালেদের অবস্থান প্রমাণে সিঙ্গাপুরের অভিজাত হোটেল মেরিনা বের সুইমিংপুলে জিসান ও খালেদের সাঁতার কাটার ছবি দিয়ে ছাপানো পোস্টার প্রতিপক্ষ গ্রুপ রাজধানীর বিভিন্ন দেয়ালে লাগিয়ে দেয়। কিন্তু যুবলীগের শীর্ষ নেতাদের আশির্বাদ থাকায় খালেদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক কোন ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয়নি। গোয়েন্দা সূত্রগুলো বলছে, একসময় টেন্ডারবাজির টাকার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে জিসানের সঙ্গেও সম্পর্কের অবনতি হয় তার। পরে যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের সঙ্গে সখ্য তৈরি করে জিসানের সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে নেন। একপর্যায়ে বড় অঙ্কের টাকা খরচ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে জিসানের বেশকিছু ক্যাডার ধরিয়ে দেন খালেদ। বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে ‘ক্রসফায়ারে’ নিহত হয়। এ ঘটনায় জিসানের সঙ্গে খালেদের সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে। ফলে খালেদ নিজস্ব সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তোলে। ব্যক্তিগত নিরাপত্তায় খালেদ অস্ত্রধারী দেহরক্ষী সঙ্গে নিয়ে সবসময় চলা ফেরা করত। নিজের নামে একাধিক অস্ত্রের লাইসেন্স নিলেও এর আড়ালে অবৈধ অস্ত্রের মজুদ গড়ে তোলে খালেদ। এসব অস্ত্র যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নিজের অনুসারীদের কাছে হস্তান্তর করতেন। সম্প্রতি আরেক শীর্ষ সন্ত্রাসীর সঙ্গে খালেদের ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়েছে। গত সপ্তাহে দু’জনের মধ্যে বৈঠকও হয়। থাইল্যান্ডে পলাতক আরেক শীর্ষ সন্ত্রাসী নবী উল্লাহ নবীর সঙ্গেও রয়েছে খালেদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। খালেদের ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো জানিয়েছে, থাইল্যান্ডে পলাতক মোহাম্মদপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী নবী উল্লাহ নবী খালেদের ব্যবসায়িক অংশীদার। ব্যাংককে একটি টু-স্টার মানের হোটেল ও পাতায়াতে ফ্ল্যাট ব্যবসায় বিনিয়োগ আছে খালেদের। এসব দেখভাল করে নবী। মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে অভিজাত সুপারমল প্যাভেলিয়নের ওপর ১১ কোটি টাকায় অ্যাপার্টমেন্ট কেনে খালেদ। স্কটল্যান্ডেও আছে বাড়ি। সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য পরিবার নিয়ে ঘনঘন যাতায়াত করে। সেখানে বিনিয়োগ ভিসায় স্থায়ীভাবে পরিবার নিয়ে থাকার প্রস্তুতিও নেয়া হয়।

Related Articles

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নাসিকের জমি উদ্ধার। সহযোগিতায় দুসস।

এম এ ওয়াদুদের দ্বারা প্রতারিত মায়া রানীর করুন কাহিনী।

রাজনীতির সংবাদ

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য প্যারোল আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত পরিবারের: মির্জা ফখরুল।

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য প্যারোল আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত পরিবারের: মির্জা ফখরুল।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য প্যারোল আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত […]

যুবলীগের বহিষ্কৃত সাবেক দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর  রহমান ও তার স্ত্রী সুমী রহমান দেশে ফিরতে চান।

যুবলীগের বহিষ্কৃত সাবেক দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান ও তার স্ত্রী সুমী রহমান দেশে ফিরতে চান।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আলোচিত ক্যাসিনো অভিযানের সময় দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়া যুবলীগের বহিষ্কৃত সাবেক […]

ভোটের রাজনীতিতে জনগণের অনীহা গণতন্ত্রের জন্য অশনি সংকেত:বলে মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের।

ভোটের রাজনীতিতে জনগণের অনীহা গণতন্ত্রের জন্য অশনি সংকেত:বলে মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ভোটের রাজনীতিতে জনগণের অনীহা গণতন্ত্রের জন্য অশনি সংকেত বলে মন্তব্য করেছেন […]

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান  মাহমুদ বলেছেন ‌নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কাছে নালিশ করাও আচরণ বিধি লঙ্ঘন।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন ‌নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কাছে নালিশ করাও আচরণ বিধি লঙ্ঘন।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, […]

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন   নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে সমর্থন দিয়েছে বিকল্পধারা বাংলাদেশ।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে সমর্থন দিয়েছে বিকল্পধারা বাংলাদেশ।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার […]

মেয়র প্রার্থী  তাবিথ আউয়ালের  বিরুদ্ধে নির্বাচনী হলফনামায় তথ্য গোপন করার  অভিযোগ উঠেছে প্রার্থিতা বাতিল হতে পারে।

মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের বিরুদ্ধে নির্বাচনী হলফনামায় তথ্য গোপন করার অভিযোগ উঠেছে প্রার্থিতা বাতিল হতে পারে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের বিরুদ্ধে নির্বাচনী […]

বিএনপি নির্বাচনকে বির্তকিত করতে নির্বাচনে আসে:বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও  শিক্ষামন্ত্রী  ডা. দীপু মনি ।

বিএনপি নির্বাচনকে বির্তকিত করতে নির্বাচনে আসে:বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বিএনপি সব সময় নির্বাচনকে বির্তকিত করতে নির্বাচনে অংশ নেয় বলে মন্তব্য […]

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আওয়ালের বাসায় ষড়যন্ত্রকারীদের নিয়ে গোপন বৈঠক।

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আওয়ালের বাসায় ষড়যন্ত্রকারীদের নিয়ে গোপন বৈঠক।

আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আওয়ালের বাসায় ষড়যন্ত্রকারীদের নিয়ে […]

জেপির সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন রাজনীতিতে অলঙ্ঘনীয় দেয়াল উঁচু হয়েছে।

জেপির সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন রাজনীতিতে অলঙ্ঘনীয় দেয়াল উঁচু হয়েছে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে খারাপ সম্পর্কের চিত্র তুলে ধরে আওয়ামী লীগ […]

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মেনে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে :প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মেনে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ মানুষের […]

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিষবৃক্ষ তুলে ফেলা এবং জঙ্গিবাদ নির্মুল করা বর্তমান সরকারের চ্যালেঞ্জ : ওবায়দুল কাদের।

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিষবৃক্ষ তুলে ফেলা এবং জঙ্গিবাদ নির্মুল করা বর্তমান সরকারের চ্যালেঞ্জ : ওবায়দুল কাদের।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের […]