October 31, 2019

দুদক অভিযোগ কেন্দ্র-১০৬ আগত অভিযোগের প্রেক্ষিতে আজ সারাদেশে ০৫টি অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক।

Image may contain: 4 people, outdoor

দুসস ডেস্কঃ
অভিযান-০১
কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের ৪৮ জন কর্মকর্তার বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন (এসিআর)’এ প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে স্বাক্ষর জালিয়াতি ও নম্বর ঘষামাজার করা হয়েছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে দুদক প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম ভূঁইয়া ও সহকারী পরিচালক ওমর ফারুক এর সমন্বয়ে গঠিত একটি টিম আজ কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, প্রধান কার্যালয়ে অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানকালে, দুদক টিম উক্ত ৪৮ জন কর্মকর্তার বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন (এসিআর) সংশ্লিষ্ট রেকর্ড-পত্র সংগ্রহপূর্বক পর্যালোচনা করে। এ বিষয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় কর্তৃক গঠিত তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটির সদস্য কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক জয়নাল আবেদীন জানান যে, পিএসসি থেকে মন্ত্রনালয়ে ফেরত পাঠানো ৪৮টি এসিআর-এর প্রতিটিরই ০৮ নং কলামে রিপোর্ট প্রদানকারী অফিসারের এর অধীনে চাকরির মেয়াদের ঘরে ঘষামাজা রয়েছ। কোন কোন এসিআর-এ রিপোর্ট প্রদানকারী কর্মকর্তার সিল পাওয়া যায়নি। এছাড়া পদোন্নতি যোগ্যতা সংক্রান্ত মন্তব্যের ঘরে অনুস্বাক্ষর নকল করে জালিয়াতির আশ্রয় গ্রহণ করা হয়েছে। রেকর্ডপত্র পর্যালোচনা করে দুদক টিম পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা চেয়ে কমিশন বরাবরে রিপোর্ট দাখিল করবে।

অভিযান-০২
বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন, পটুয়াখালীর বাফার গুদাম থেকে ৩৬০ মেট্রিক টন সার আত্মসাতের অভিযোগে আজ দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়, পটুয়াখালী সহকারী পরিচালক মোঃ মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে একটি অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানকালে দুদক টিম এ সংক্রান্ত রেকডপত্র সংগ্রহপূর্বক পর্যালোচনা এবং সরেজমিন পরিদর্শন করে বাফার গুদাম থেকে ৩৬০ মে: টন সার আত্মসাতের প্রাথমিক প্রমান পায়। বাফার গুদামের সাবেক রক্ষক জনাব মোঃ জাফর আলম দুর্নীতি ও অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে ৩৬০ মেট্রিক টন সার আত্মসাত করেছেন মর্মে দুদক টিমের নিকট প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়। এ বিষয়ে বিস্তারিত অনুসন্ধানের অনুমোদন চেয়ে কমিশনের নিকট প্রতিবেদন দাখিল করবে দুদক টিম।
অভিযান নং – ০৩, ০৪ ও ০

এছাড়া, খতিয়ান গ্রহণে সরকারি আবেদন ফি’র অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণের অভিযোগে জেলা প্রশাসক-বগুড়া, নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, গোপালগঞ্জসহ আরও ০২ টি অভিযান পরিচালিত হয়।

দুদক অভিযোগ কেন্দ্র-১০৬ এ আগত অভিযোগের বিষয়ে সরেজমিন তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে কমিশনকে প্রতিবেদন আকারে অবহিত করার জন্য সিনিয়র সচিব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সোনালী ব্যাংকে-কে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *