November 8, 2019

দেশব্যাপী দুদকের দুর্নীতিবিরোধী অভিযান

Image may contain: 4 people, people sitting and hat

আগাম ঘুষের ৯১ লক্ষ ৮৩ হাজার টাকার চেক ও নগদ ৮.০৭ লক্ষ টাকাসহ চট্টগামে ২ জন গ্রেফতার এবং ঘুষের টাকাসহ কুষ্টিয়াতে ২ জন গ্রেফতার

দুদক চট্টগ্রামের একটি এনফোর্সমেন্ট টিম চট্টগ্রাম শহরের চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সে অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ভূমি অধিগ্রহণ শাখার(এল এ শাখা) বেশকিছু নথি উদ্ধার করেছে। এসময় জেলা প্রশাসক অফিসের এলএ শাখার চেইনম্যান মোঃ নজরুল ইসলামকে (প্রেষণে ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সংযুক্ত) গ্রেফতার করা হয়। তার ব্যবহৃত ড্রয়ার তল্লাশি করে নগদ ৭.৫০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয় । এসময় তার কাছ থেকে ৯১ লক্ষ ৮৩ হাজার টাকার অগ্রীম ঘুষের চেক উদ্ধার করে দুদক টিম। একই সাথে একই স্থান থেকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মোঃতসলিম উদ্দীনকেও ঘুষের ৫৭ হাজার টাকা সহ গেফতার করা হয়েছে। এ বিষয়ে দুদক সজেকা চট্টগ্রাম-২ এর সহকারী পরিচালক রতন কুমার দাস বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করবেন।

এদিকে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস, সদর, কুষ্টিয়া কার্যালয়ের সাব-রেজিষ্ট্রার ও অন্যান্য কর্মচারীদের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের নিকট হতে অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণসহ গ্রাহক হয়রানির অভিযোগে সমন্বিত জেলা কার্যালয়, কুষ্টিয়ার সহকারী পরিচালক মোঃ রফিক উদ্দিন খান এর নেতৃত্বে আজ (০৭-১১-২০১৯ খ্রি.) একটি এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযান পরিচালনাকালে সাব-রেজিষ্ট্রার এর অফিস কক্ষে অবস্থানরত ঐ অফিসের অফিস সহকারী মোঃ রফিকুল ইসলাম যখন সাব-রেজিস্ট্রার সুব্রত কুমার সিংহকে অবৈধভাবে অর্জিত ১,০৪,৪০০/- (এক লক্ষ চার হাজার চারশত) টাকা হস্তান্তর করার সময় দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম তাদেরকে হাতেনাতে আটক করে। তাঁরা উক্ত টাকার উৎস স¤পর্কে দুদক টিমের নিকট কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। তাৎক্ষনিকভাবে উক্ত অবৈধ উপায়ে অর্জিত অপরাধলদ্ধ অর্থ ১,০৪,৪০০/- (এক লক্ষ চার হাজার চারশত) টাকার ইনভেন্টরি তালিকা প্রস্তুত করে এনফোর্সমেন্ট টিম। দুদক টিম কুষ্টিয়া সদর সাব-রেজিষ্ট্রার সুব্রত কুমার সিংহ এবং সদর সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসের অফিস সহকারী মোঃ রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করে দ-বিধির ১৬১/১৬৫ (ক)/১০৯ ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় একটি মামলা দায়ের করে।

এছাড়াও ঢাকা ওয়াসার যাত্রাবাড়ী অফিসে বিল কমিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুত দিয়ে বে-আইনিভাবে অর্থ আদায়ের অভিযোগে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল যুব উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ঋণ প্রদানে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে এবং জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়মবহির্ভূতভাবে স্টাফ কোয়ার্টার চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের নামে বরাদ্দ দেওয়ার অভিযোগে যথাক্রমে প্রধান কার্যালয়, সমন্বিত জেলা কার্যালয়, কুমিল্লা ও সমন্বিত জেলা কার্যালয়, জামালপুর হতে ৩টি পৃথক এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *