July 24, 2021, 1:44 am

News Headline :
মধুপুরে প্রাণী সম্পদ অফিসের অনিয়মের প্রতিবাদে মানববন্ধন দুমকিতে ট্রাকে মিলল দেড় কোটি টাকার চিংড়ি রেণু! লবন বোঝাই ট্রাক থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার সহ দু’জন গ্রেফতার। ভালুকায় ঈদুল আযহা উপলক্ষে নগদ অর্থ বিতরন মহেশখালী থানা পুলিশের অভিযানে হত্যা মামলার রিমান্ড প্রাপ্ত আসামীর দখল হতে অস্ত্র-কার্তুজ উদ্ধার। ভালুকায় মাদকাসক্ত যুবকের লাশ উদ্ধার বেনাপোল বাজারে অগ্নিকান্ডে ৪টি দোকান পুড়ে ছাই! কোটি টাকার লোকসানের আসংখ্য ব্যবসায়ীদের টাঙ্গাইলে করোনা আইসিইউ ওয়ার্ডে অগ্নিকান্ড, তদন্ত কমিটি গঠন টাঙ্গাইলে নির্মাণ শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা গোপালপুরে টাকার জন্য সন্তান বিক্রি, প্রশাসনের তৎপরতায় উদ্ধার গাড়ির চাপে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ধীর গতি টাঙ্গাইলে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ২ চালক নিহত; আহত ৪ ভালুকায় কুপিয়ে শিল্পপতির পা বিচ্ছিন্ন করার ঘটনায় প্রধান আসামীসহ মোট ৭জন গ্রেফতার শার্শা থানা পুলিশের অভিযানে ৩লাখ টাকার গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক দুমকিতে সিগারেট ধরাতে ম্যাছলাইট না দেয়ায় দোকানীকে মারধর, আহত-২০ ঈদগাঁওতে কোরবানির গরু প্রচার কালে গরু বোঝাই গাড়ি আটক সহ তিনজনকে গ্রেফতার। উখিয়ায় ১০ হাজার ৪০০ পিস ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসাসী গ্রেফতার। যশোরে জেলা পুলিশের ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ ভালুকায় শিশু নাজিফাকে মায়ের হাতে তুলে দিলেন সালমা খাতুন ভালুকায় মটর সাইকেলের ধাক্কায় কৃষক নিহত শার্শায় ২কেজি গাঁজা সহ মাদকব্যবসায়ী আটক অনলাইনে গরুর হাট; টাঙ্গাইলে খামারিদের দুশ্চিন্তা ঈদগাঁও থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হালিম এর নেতৃত্বে ধর্ষণ মামলার আসামি সহ গ্রেফতার। সরকারি চাকরিজীবী পরিবারের ব্যবসা করা বন্ধ। টাঙ্গাইলে এক রাতে যমুনার গর্ভে বিলিন শতাধিক বাড়ি-ঘরসহ অনেক স্থাপনা ভালুকায় যুবলীগের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন বাঘাইছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ বৈদ্যতিক খুঁটি নিয়ে জনমনে আতঙ্ক টাঙ্গাইলে লৌহজং নদী দখল করে নির্মাণাধীন ভবনের কাজ বন্ধ করে দিলেন এসিল্যান্ড টাঙ্গাইলের বাসাইলে ঝিনাই নদীতে দেখা দিয়েছে তীব্র ভাঙ্গন টাঙ্গাইলের নাগরপুরে একটি সেতুর অভাবে ৭ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ চরমে।

ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।

ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বেসরকারি চাকরিতে ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের বাজারে ! আমাদের প্রতিবেদকের তথ্য থেকে উঠে আসে; তারা পোশাক, বায়িং হাউজ, আইটি এবং সেবা খাতে প্রাধান্য বিস্তার করে আছে। এর পরেই শ্রীলঙ্কা চীনের অবস্থান রয়েছে। তবে মোট বিদেশির কমপক্ষে অর্ধেক ভারতীয়।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে করোনা ভাইরাসের কারণে চীনাদের দাপট কমে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়ায় ভারতীয়দের দাপট আরো বাড়তে পারে বলে ব্যবসায়ীমহল জানিয়েছেন।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) বুধবার তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে বাংলাদেশে মোট বিদেশি দুই লাখ ৫০ হাজার। তাদের মধ্যে বৈধ ৯০ হাজার। বাকিরা অবৈধভাবে বাংলাদেশে আছেন। আর যারা বৈধভাবে আছেন তাদের মধ্যে ৫০ ভাগ কোনো অনুমতি না নিয়েই টুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন। এই বিদেশিরা বছরে ২৬ হাজার ৪০০ কোটি টাকা পাচার করেন। টিআইবি বাংলাদেশে বিদেশিদের হিসাব করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ২০১৮ সালে দেয়া ৮৫ হাজার ৪৮৬ জন বৈধ বিদেশির তথ্যের ওপর ভিত্তি করে। কিন্তু বাস্তবে এই সংখ্যা বহুগুণ বেশি।

কিন্তু এর বাস্তব চিত্র আরো ভয়াবহ, বাংলাদেশে দুটি তৈরি পোশাক কারখানার মালিকের সাথে কথা বলে জানা গেছে নানা কারণে পোশাক খাতে ভারতীয়দের অবস্থান শক্ত। এর মধ্যে পোশাক খাতে ডিজাইনসহ আরো কয়েকটি বিষয়ে দক্ষ জনশক্তির অভাব আছে। আর পোশাকের বায়িং হাউজগুলো নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয়রা। ফলে পোশাক কারাখানাগুলো বায়ার পেতে তাদের কারখানায় মার্কেটিং এবং হিসাব বিভাগেও ভারতীয়দের নিয়োগ করে। তাদের মতে বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোতে এক লাখেরও বেশি ভারতীয় কাজ করেন। অন্যদিকে বায়িং হাউজে এই সংখ্যা আরো আরো বেশি।

এর বাইরে আইটি খাতেও ভারতীয়দের দাপট। আরো অনেক সেবা খাত আছে যেখানে ভারতীয়রা কাজ করেন। এমনকি বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম, বিজ্ঞাপন, কনসালটেন্সি এসব খাতেও ভারতীয়রা রয়েছেন। সবমিলিয়ে বাংলাদেশে কম করে হলেও পাঁচ লাখ ভারতীয় কাজ করে বলে ধারণা করা হয়। কিন্তু তাদের অধিকাংশেরই কোনো ওয়ার্ক পারমিট নেই। তারা ট্যুরিস্ট ভিসায় আসেন। আর তাদের বেতন অনেক বেশি। ট্যুরিস্ট ভিসায় যারা কাজ করেন তাদের আয়করা পুরো অর্থই অবৈধ পথে বাংলাদেশের বাইরে চলে যায়।

বাংলাদেশের আইটি খাতের একজন উদ্যোক্তা জানান, সফটওয়্যার ও ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে ভারতীয় কৌশল ব্যবহারের কারণে ওই দেশের জনশক্তিকেও কাজ দিতে হয়। শুধু তাই নয় অনেক ক্ষেত্রে তাদের লোক রাখার শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। আবার ট্রাভেল এজন্টদের বড় একটি অংশ ভারতীয়দের নিয়ন্ত্রণে। তাই তাদের সফটওয়্যার ও তাদের লোক বলে কাজ হয়। এটা সরকারের পলিসির বিষয়। সরকার পলিসি ঠিক করলে তাদের দাপট কমবে।

বাংলাদেশের চাকরির বাজার নিয়ে কাজ করা সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান হলো বিডিজবস ডটকম। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী ফাহিম মাশরুর বলেন, কর্মরত বিদেশিদের মধ্যে ভারতীয়রাই শীর্ষে। তারপরে শ্রীলঙ্কা, চীন, থাইল্যান্ড। এদেরমধ্যে শতকরা ১০ ভাগেরও ওয়ার্ক পারমিট নেই। অধিকাংশই অবৈধভাবে কাজ করেন। তাদের পেমেন্টও এখানে করা হয়না। ভারতীয় হলে তার পেমেন্ট ভারতেই দেয়া হয়। যারা নিয়োগ করেন তারা এরকম একটা সিস্টেম গড়ে তুলেছেন।

বাংলাদেশ থেকে কত রেমিটেন্স দেশের বাইরে যায় সেই হিসাবটি দেখলে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশিদের সংখ্যা সম্পর্কে একটা ধারনা পাওয়া যায়। আর বাংলাদেশ থেকে ভারতেই বেশি রেমিটেন্স যায়। পোশাক খাতের আয়েরও বড় একটি অংশ তাদের টেকনিশিয়ান ও ডিজাইনাররা নিয়ে যান।

বিআইডিএস-এর অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ জানান, প্রতিবছর আমাদের দেশ থেকে চার-পাঁচ বিলিয়ন ডলার দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। আর এবার আমাদের রেমিটেন্সের টার্গেট ২০ বিলিয়ন ডলার৷ তাহলে আমরা যা আনতে পারি তার পাঁচ ভাগের এক ভাগ আবার বিদেশি কর্মীদের দিয়ে দিতে হয়। এ থেকে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশিদের সম্পর্কে একটা ধারণা পাওয়া যায়। এটা আমি বলছি বৈধ চ্যানেলের কথা। অবৈধভাবে কত যায় সেটা সরকার উদ্যোগ নিলে জানতে পারে। কিন্তু উদ্যোগ নেই। এই অর্থ সবচেয়ে বেশি যায় ভারত ও শ্রীলঙ্কায়। আমার কাছে অবাক লাগে এখানে একাউন্টেন্ট, প্রশাসনিক কাজেও বাইরে থেকে লোক আনা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All Rights Reserved: Duronto Sotter Sondhane (Dusos)
Design by Raytahost.com