September 25, 2022, 9:12 pm

তথ্য ও সংবাদ শিরোনামঃ
পবিপ্রবিতে মাদকমুক্ত দেশ গঠনে ছাত্র-শিক্ষকের ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময় গর্ভধারিণী মাকে খুঁজপেতে দেওয়ালে মায়ের সন্ধান চেয়ে পোস্টার লাগাচ্ছেন ছোট ছেলে। যশোরের শার্শা ও বেনাপোল পোর্ট থানার যৌথ উদ্যোগে ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠান। যশোরের বেনাপোল চেকপোস্ট সীমান্তে ১ লক্ষ ৭০ হাজার ইউএস ডলার সহ দুই পাসপোর্ট যাত্রী আটক। ভালুকায় নারীসহ শ্রমিকলীগ নেতা আটক চরগরবদি চরাঞ্চলে লাঠিয়াল বাহিনীর তান্ডব ৫একর জমির রোপা আমনের ক্ষেত বিনস্ট বাবার লাশ বাড়িতে রেখে পরিক্ষার হলে আবু হানিফ ভালুকায় মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয় ছয় বাংলাদেশিকে তিন বছর পর বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় পুলিশ। যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে টাকায় চলে রোগীদের ট্রেচার ট্রলি ও হুইল চেয়ার ভাড়া বাণিজ্যে। জাহাজ থেকে সার চুরির ঘটনায় ৯ জন গ্রেপ্তার। যশোরের শার্শা সীমান্ত থেকে ১৫ পিস স্বর্ণের বারসহ এক স্বর্ণ পাচারকারী আটক। ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া পল্লী বিদ্যুতের শাখা কার্যালয়ে ঘুষের টাকা নেওয়া সেই ডিজিএম সাময়িক বরখাস্ত। যশোরের লাউজানি ধান ক্ষেত থেকে সাবেক (ইউপি) সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। দুমকি দলিল লেখক সমিতির নব গঠিত কমিটির পরিচিতি সভা ও শপথ অনুষ্ঠান ভালুকায় নদী থেকে অজ্ঞাত নারীর লাশ উদ্ধার বেনাপোল বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনে তল্লাশি কে কেন্দ্র করে বিজিবি ও রেল পুলিশ সদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষে। ভালুকায় বাসচাপায় বাইকচালক নিহত দুমকিতে কলেজ গভর্ণিং বডির নব-নিযুক্ত সভাপতিকে নাগরিক সংবর্ধনা ভালুকায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ বেনাপোল পুটখালী সীমান্তে ভারতে পাচারের সময় দুই কোটি টাকা মূল্যের ২০টি সোনার বারসহ আটক এক। ভালুকায় কৃষকের শতাধিক পেঁপে গাছ কর্তন ভালুকায় ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের পরিচিতি শপথ পাঠ অনুষ্ঠিত ভালুকায় ৩ লাখ টাকার অবৈধ জাল জব্দ ভালুকায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত যশোরের বেনাপোল ৫ হাজার পিস ইয়াবা, ৪ কেজি গাঁজা ১০০ বোতল ফেনসিডিল সহ পাচারকারী আটক। কোলকাতা খুলনা বন্ধন এক্সপ্রোস ট্রেনে অভিযান চালিয়ে ১০ লাখ টাকার নিষিদ্ধ পন্য জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। ভালুকায় জননেত্রী শেখ হাসিনা সংগ্রহশালা’র শুভ উদ্বোধন বেনাপোল পোর্ট থানার রঘুনাথপুর সীমান্ত পাশ থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাচার হওয়া ৭ নারীকে ৩ বছর পর হস্তান্তর করেছে ভারতীয় পুলিশ।

ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।

ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বেসরকারি চাকরিতে ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের বাজারে ! আমাদের প্রতিবেদকের তথ্য থেকে উঠে আসে; তারা পোশাক, বায়িং হাউজ, আইটি এবং সেবা খাতে প্রাধান্য বিস্তার করে আছে। এর পরেই শ্রীলঙ্কা চীনের অবস্থান রয়েছে। তবে মোট বিদেশির কমপক্ষে অর্ধেক ভারতীয়।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে করোনা ভাইরাসের কারণে চীনাদের দাপট কমে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়ায় ভারতীয়দের দাপট আরো বাড়তে পারে বলে ব্যবসায়ীমহল জানিয়েছেন।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) বুধবার তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে বাংলাদেশে মোট বিদেশি দুই লাখ ৫০ হাজার। তাদের মধ্যে বৈধ ৯০ হাজার। বাকিরা অবৈধভাবে বাংলাদেশে আছেন। আর যারা বৈধভাবে আছেন তাদের মধ্যে ৫০ ভাগ কোনো অনুমতি না নিয়েই টুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন। এই বিদেশিরা বছরে ২৬ হাজার ৪০০ কোটি টাকা পাচার করেন। টিআইবি বাংলাদেশে বিদেশিদের হিসাব করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ২০১৮ সালে দেয়া ৮৫ হাজার ৪৮৬ জন বৈধ বিদেশির তথ্যের ওপর ভিত্তি করে। কিন্তু বাস্তবে এই সংখ্যা বহুগুণ বেশি।

কিন্তু এর বাস্তব চিত্র আরো ভয়াবহ, বাংলাদেশে দুটি তৈরি পোশাক কারখানার মালিকের সাথে কথা বলে জানা গেছে নানা কারণে পোশাক খাতে ভারতীয়দের অবস্থান শক্ত। এর মধ্যে পোশাক খাতে ডিজাইনসহ আরো কয়েকটি বিষয়ে দক্ষ জনশক্তির অভাব আছে। আর পোশাকের বায়িং হাউজগুলো নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয়রা। ফলে পোশাক কারাখানাগুলো বায়ার পেতে তাদের কারখানায় মার্কেটিং এবং হিসাব বিভাগেও ভারতীয়দের নিয়োগ করে। তাদের মতে বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোতে এক লাখেরও বেশি ভারতীয় কাজ করেন। অন্যদিকে বায়িং হাউজে এই সংখ্যা আরো আরো বেশি।

এর বাইরে আইটি খাতেও ভারতীয়দের দাপট। আরো অনেক সেবা খাত আছে যেখানে ভারতীয়রা কাজ করেন। এমনকি বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম, বিজ্ঞাপন, কনসালটেন্সি এসব খাতেও ভারতীয়রা রয়েছেন। সবমিলিয়ে বাংলাদেশে কম করে হলেও পাঁচ লাখ ভারতীয় কাজ করে বলে ধারণা করা হয়। কিন্তু তাদের অধিকাংশেরই কোনো ওয়ার্ক পারমিট নেই। তারা ট্যুরিস্ট ভিসায় আসেন। আর তাদের বেতন অনেক বেশি। ট্যুরিস্ট ভিসায় যারা কাজ করেন তাদের আয়করা পুরো অর্থই অবৈধ পথে বাংলাদেশের বাইরে চলে যায়।

বাংলাদেশের আইটি খাতের একজন উদ্যোক্তা জানান, সফটওয়্যার ও ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে ভারতীয় কৌশল ব্যবহারের কারণে ওই দেশের জনশক্তিকেও কাজ দিতে হয়। শুধু তাই নয় অনেক ক্ষেত্রে তাদের লোক রাখার শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। আবার ট্রাভেল এজন্টদের বড় একটি অংশ ভারতীয়দের নিয়ন্ত্রণে। তাই তাদের সফটওয়্যার ও তাদের লোক বলে কাজ হয়। এটা সরকারের পলিসির বিষয়। সরকার পলিসি ঠিক করলে তাদের দাপট কমবে।

বাংলাদেশের চাকরির বাজার নিয়ে কাজ করা সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান হলো বিডিজবস ডটকম। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী ফাহিম মাশরুর বলেন, কর্মরত বিদেশিদের মধ্যে ভারতীয়রাই শীর্ষে। তারপরে শ্রীলঙ্কা, চীন, থাইল্যান্ড। এদেরমধ্যে শতকরা ১০ ভাগেরও ওয়ার্ক পারমিট নেই। অধিকাংশই অবৈধভাবে কাজ করেন। তাদের পেমেন্টও এখানে করা হয়না। ভারতীয় হলে তার পেমেন্ট ভারতেই দেয়া হয়। যারা নিয়োগ করেন তারা এরকম একটা সিস্টেম গড়ে তুলেছেন।

বাংলাদেশ থেকে কত রেমিটেন্স দেশের বাইরে যায় সেই হিসাবটি দেখলে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশিদের সংখ্যা সম্পর্কে একটা ধারনা পাওয়া যায়। আর বাংলাদেশ থেকে ভারতেই বেশি রেমিটেন্স যায়। পোশাক খাতের আয়েরও বড় একটি অংশ তাদের টেকনিশিয়ান ও ডিজাইনাররা নিয়ে যান।

বিআইডিএস-এর অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ জানান, প্রতিবছর আমাদের দেশ থেকে চার-পাঁচ বিলিয়ন ডলার দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। আর এবার আমাদের রেমিটেন্সের টার্গেট ২০ বিলিয়ন ডলার৷ তাহলে আমরা যা আনতে পারি তার পাঁচ ভাগের এক ভাগ আবার বিদেশি কর্মীদের দিয়ে দিতে হয়। এ থেকে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশিদের সম্পর্কে একটা ধারণা পাওয়া যায়। এটা আমি বলছি বৈধ চ্যানেলের কথা। অবৈধভাবে কত যায় সেটা সরকার উদ্যোগ নিলে জানতে পারে। কিন্তু উদ্যোগ নেই। এই অর্থ সবচেয়ে বেশি যায় ভারত ও শ্রীলঙ্কায়। আমার কাছে অবাক লাগে এখানে একাউন্টেন্ট, প্রশাসনিক কাজেও বাইরে থেকে লোক আনা হয়।

আমাদের প্রকাশিত তথ্য ও সংবাদ আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All Rights Reserved: Duronto Sotter Sondhane (Dusos)
Design by Raytahost.com