May 30, 2024, 7:24 pm

তথ্য ও সংবাদ শিরোনামঃ
চুলের জন্য তেল কি জরুরি? আন্তর্জাতিক এভারেস্ট যুবক সত্যদীপ গুপ্ত পর্বতারোহনে রেকর্ড গড়লেন। জেএসএস, ইউপিডিএফ, কেএনএফ রাষ্ট্রদ্রোহী সন্ত্রাসী বান্দরবানে কেএনএফ’র দালালকে অপসারণ ও বিচারের দাবি করেছে পিসিএনপি নিকাহ নামার ৫নং কলামের কুমারী শব্দটি তুলে দেয়া হবে এর প্রতিবাদে এবং কুমারী বাণিজ্যকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন। রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হাবিবুর রহমান নির্বাচিত। রেমেল ঘূর্ণিঝড়ই শেষ নয়, অপেক্ষা করছে অনেক বাংলাদেশের উপকূল অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি ও প্রাণহানিতে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন। শরীর কে সুপার কুল রাখতে চান? তাহলে কাঁচা আমের সাহায্য নিন কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন কবিগুরুর অন্তরাত্মা, যারা দুজনের সম্পর্কের মধ্যে ফাটল ধরায় তারা জেনে রাখুন সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া জরুরী। -লায়ন গনি মিয়া বাবুল ঘূর্ণিঝড় রিমালের তান্ডবে বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা বিধ্বস্ত। ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাব ঝড়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে উপড়ে পড়লো তিন গাছ। ভালুকায় পানিতে ডুবে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু ২৬ মে আন্তর্জাতিক হকার দিবস পালিত, পুনর্বাসনের দাবিতে হকার বিক্ষোভ-সমাবেশ অনুষ্ঠিত। চোখের জলে ভাসিয়ে দেওয়া বাংলার স্মৃতি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকীতে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ভাসানী’র শ্রদ্ধা জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন ভালুকায় রাস্তা পারাপারের সময় বাস চাপায় স্বামী স্ত্রীর মৃত্যু পরিবেশ রক্ষা ও তিস্তাসহ অভিন্ন নদীর অবাধ পানি প্রবাহের জন্য গণ- সমাবেশ ও বিক্ষোভ প্রকাশ অনুষ্ঠিত হয়। ধর্মের বেড়াজাল ছিন্ন করে দেশবাসীকে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন বিদ্রোহী কবি নজরুলের ১২৫ তম জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি ইব্রাহিম রাইসি ছিলেন নির্যাতিত-নীপিড়িত মুসলিম উম্মাহর আশার আলো বাচ্চাদের কে সচেতন রাখার দায়িত্ব বড়দের/ যোগাসন করিয়ে সুস্থ রেখে বাচ্চাদের পড়াশোনার মনোযোগ বাড়ান। সাংবাদিকের উপরে হামলা, মামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন। বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাংবাদিক রুবিনা ইয়াসমিন অন্তরার ওপর বর্বরোচিত হামলা ও হত্যাচেষ্টরা প্রতিবাদে মানববন্ধন। ভালুকায় শেয়াল তাড়াতে গিয়ে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু ঈদগাও উপজেলার পোকখালীতে নির্বাচনী সহিংসতায় একজনের মৃত্যু। একদিন চিকিৎসা বিজ্ঞানে বিভিন্ন ধরণের আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করতে সক্ষম হবেন। ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে বিশ্ব একজন দায়িত্বশীল নেতাকে হারিয়েছে। মুসলিম লীগ-বিএমএল নিজের ত্বকের যত্ন কিভাবে রাখবেন? ভালুকায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ

ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।

ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের চাকরির বাজারে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বেসরকারি চাকরিতে ভারতীয়দের দাপট এখন বাংলাদেশের বাজারে ! আমাদের প্রতিবেদকের তথ্য থেকে উঠে আসে; তারা পোশাক, বায়িং হাউজ, আইটি এবং সেবা খাতে প্রাধান্য বিস্তার করে আছে। এর পরেই শ্রীলঙ্কা চীনের অবস্থান রয়েছে। তবে মোট বিদেশির কমপক্ষে অর্ধেক ভারতীয়।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে করোনা ভাইরাসের কারণে চীনাদের দাপট কমে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়ায় ভারতীয়দের দাপট আরো বাড়তে পারে বলে ব্যবসায়ীমহল জানিয়েছেন।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) বুধবার তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে বাংলাদেশে মোট বিদেশি দুই লাখ ৫০ হাজার। তাদের মধ্যে বৈধ ৯০ হাজার। বাকিরা অবৈধভাবে বাংলাদেশে আছেন। আর যারা বৈধভাবে আছেন তাদের মধ্যে ৫০ ভাগ কোনো অনুমতি না নিয়েই টুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন। এই বিদেশিরা বছরে ২৬ হাজার ৪০০ কোটি টাকা পাচার করেন। টিআইবি বাংলাদেশে বিদেশিদের হিসাব করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ২০১৮ সালে দেয়া ৮৫ হাজার ৪৮৬ জন বৈধ বিদেশির তথ্যের ওপর ভিত্তি করে। কিন্তু বাস্তবে এই সংখ্যা বহুগুণ বেশি।

কিন্তু এর বাস্তব চিত্র আরো ভয়াবহ, বাংলাদেশে দুটি তৈরি পোশাক কারখানার মালিকের সাথে কথা বলে জানা গেছে নানা কারণে পোশাক খাতে ভারতীয়দের অবস্থান শক্ত। এর মধ্যে পোশাক খাতে ডিজাইনসহ আরো কয়েকটি বিষয়ে দক্ষ জনশক্তির অভাব আছে। আর পোশাকের বায়িং হাউজগুলো নিয়ন্ত্রণ করে ভারতীয়রা। ফলে পোশাক কারাখানাগুলো বায়ার পেতে তাদের কারখানায় মার্কেটিং এবং হিসাব বিভাগেও ভারতীয়দের নিয়োগ করে। তাদের মতে বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোতে এক লাখেরও বেশি ভারতীয় কাজ করেন। অন্যদিকে বায়িং হাউজে এই সংখ্যা আরো আরো বেশি।

এর বাইরে আইটি খাতেও ভারতীয়দের দাপট। আরো অনেক সেবা খাত আছে যেখানে ভারতীয়রা কাজ করেন। এমনকি বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম, বিজ্ঞাপন, কনসালটেন্সি এসব খাতেও ভারতীয়রা রয়েছেন। সবমিলিয়ে বাংলাদেশে কম করে হলেও পাঁচ লাখ ভারতীয় কাজ করে বলে ধারণা করা হয়। কিন্তু তাদের অধিকাংশেরই কোনো ওয়ার্ক পারমিট নেই। তারা ট্যুরিস্ট ভিসায় আসেন। আর তাদের বেতন অনেক বেশি। ট্যুরিস্ট ভিসায় যারা কাজ করেন তাদের আয়করা পুরো অর্থই অবৈধ পথে বাংলাদেশের বাইরে চলে যায়।

বাংলাদেশের আইটি খাতের একজন উদ্যোক্তা জানান, সফটওয়্যার ও ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে ভারতীয় কৌশল ব্যবহারের কারণে ওই দেশের জনশক্তিকেও কাজ দিতে হয়। শুধু তাই নয় অনেক ক্ষেত্রে তাদের লোক রাখার শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। আবার ট্রাভেল এজন্টদের বড় একটি অংশ ভারতীয়দের নিয়ন্ত্রণে। তাই তাদের সফটওয়্যার ও তাদের লোক বলে কাজ হয়। এটা সরকারের পলিসির বিষয়। সরকার পলিসি ঠিক করলে তাদের দাপট কমবে।

বাংলাদেশের চাকরির বাজার নিয়ে কাজ করা সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান হলো বিডিজবস ডটকম। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী ফাহিম মাশরুর বলেন, কর্মরত বিদেশিদের মধ্যে ভারতীয়রাই শীর্ষে। তারপরে শ্রীলঙ্কা, চীন, থাইল্যান্ড। এদেরমধ্যে শতকরা ১০ ভাগেরও ওয়ার্ক পারমিট নেই। অধিকাংশই অবৈধভাবে কাজ করেন। তাদের পেমেন্টও এখানে করা হয়না। ভারতীয় হলে তার পেমেন্ট ভারতেই দেয়া হয়। যারা নিয়োগ করেন তারা এরকম একটা সিস্টেম গড়ে তুলেছেন।

বাংলাদেশ থেকে কত রেমিটেন্স দেশের বাইরে যায় সেই হিসাবটি দেখলে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশিদের সংখ্যা সম্পর্কে একটা ধারনা পাওয়া যায়। আর বাংলাদেশ থেকে ভারতেই বেশি রেমিটেন্স যায়। পোশাক খাতের আয়েরও বড় একটি অংশ তাদের টেকনিশিয়ান ও ডিজাইনাররা নিয়ে যান।

বিআইডিএস-এর অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ জানান, প্রতিবছর আমাদের দেশ থেকে চার-পাঁচ বিলিয়ন ডলার দেশের বাইরে চলে যাচ্ছে। আর এবার আমাদের রেমিটেন্সের টার্গেট ২০ বিলিয়ন ডলার৷ তাহলে আমরা যা আনতে পারি তার পাঁচ ভাগের এক ভাগ আবার বিদেশি কর্মীদের দিয়ে দিতে হয়। এ থেকে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশিদের সম্পর্কে একটা ধারণা পাওয়া যায়। এটা আমি বলছি বৈধ চ্যানেলের কথা। অবৈধভাবে কত যায় সেটা সরকার উদ্যোগ নিলে জানতে পারে। কিন্তু উদ্যোগ নেই। এই অর্থ সবচেয়ে বেশি যায় ভারত ও শ্রীলঙ্কায়। আমার কাছে অবাক লাগে এখানে একাউন্টেন্ট, প্রশাসনিক কাজেও বাইরে থেকে লোক আনা হয়।

আমাদের প্রকাশিত তথ্য ও সংবাদ আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All Rights Reserved: Duronto Sotter Sondhane (Dusos)

Design by Raytahost.com