October 21, 2020

টাঙ্গাইলে বিভিন্ন পদের উপ-নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা

এম শহিদুল ইসলাম, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলে আজ ৫ টি এলাকায় বিভিন্ন পদে উপ- নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তোফায়েল আহামেদ বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতীকে ৬ হাজার ২৬০ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু হোসেন সরকার আবু আনারস প্রতীকে ৪ হাজার ৬৪৫ ভোট পেয়েছেন। তৃতীয় হয়েছেন ধানের শীর্ষ প্রতিকের বিএনপির প্রার্থী সৈয়দ শাহিন। তিনি ১ হাজার ৫৯০ ভোট পেয়েছেন। এই ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের ১০টি কেন্দ্রে মোট ভোটার ২৫ হাজার ২৬৮ জন। এর মধ্যে ৫১ ভাগ ভোট কাস্টিং হয়।

টাঙ্গাইলের জেলা নির্বাচন অফিসার এ.এইচ.এম কামরুল হাসান মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) রাতে বেসরকারীভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

এছাড়াও টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের ১৫নং ওর্য়াডের (গোপালপুর) উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এসএম রফিকুল ইসলাম ৬১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আব্দুল লতিফ ৪২ ভোট পেয়েছেন।

অপরদিকে দেলদুয়ার উপজেলার ডুবাইল ইউনিয়নের ৩নং সংরক্ষিত ওর্য়াডের সদস্য পদে নির্বাচনে হাজেরা বেগম (সূর্যমুখী) ১ হাজার ৩৭৮ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন।

অন্যদিকে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার করটিয়া ইউনিয়নে ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে আব্দুল লতিফ মিয়া (মোরগ মার্কা) ১ হাজার ৬৬৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। এছাড়া ছিলিমপুর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য পদে আরিফুল ইসলাম ৬৬৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলে। পরে ভোট গ্রহণ শেষে বেসরকারীভাবে ফলাফল জানানো হয়।

সরেজমিনে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের বিভিন্ন কেন্দ্রে দেখা যায়, ভোট কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি কম ছিল। কোন কোন ভোট কেন্দ্রে একদমই ফাঁকা দেখা যায়। তবে উৎসবের আমেজ ছিল সর্বত্রই।
টাঙ্গাইল জেলা নির্বাচন অফিস গণমাধ্যমকে জানান, নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে ১০ জন পুলিশ এবং ১২ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করে। এছাড়া র‌্যাবের ২টি টিম এবং স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে পুলিশের একাধিক সদস্যও দায়িত্ব পালন করেছে। এছাড়াও ২ প্লাটুন বিজিপিও মোতায়েন ছিল।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল জেলা নির্বাচন অফিসার এ.এইচ.এম কামরুল হাসান বলেন, নির্বাচন অবাধ এবং সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হয়। কোন ধরনের বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি। নির্বাচনে পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্ব পালন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *