December 13, 2020

যারা ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করে ও সীমা অতিক্রম করে, তারা-ই প্রকৃত জালেম। -পবিত্র আল কোরআন

পবিত্র আল কোরআনের আলোকে নিন্দা ও নিষেধাজ্ঞা :

ইসলামে ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করার ব্যাপারে কঠোর নিষেধাজ্ঞা এসেছে। পবিত্র আল কোরআনে এ সম্বন্ধে অনেক আয়াত রয়েছে।

যেমনঃ
১. হে কিতাবধারীরা! নিজেদের ধর্ম নিয়ে অযথা বাড়াবাড়ি করোনা। আর (ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করে) তোমাদের আগে যারা নিজেরা পথভ্রষ্ট হয়ে ও অন্যদেরকে পথভ্রষ্ট করে সহজ সরল পথচ্যুত হয়েছে, তাদের পথ অবলম্বন করোনা।’ (সুরা মায়িদা : আয়াত-৭৭)।

২. হে কিতাবধারীরা! তোমরা তোমাদের ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়িতে লিপ্ত হয়ো না। আর আল্লাহ সম্বন্ধে যথাযথ বলো।’ (সুরা নিসা : আয়াত- ১৭১)।

৩. (হে রাসুল!) আপনাকে দীনের পথে যেভাবে অবিচল থাকবার নির্দেশ দেয়া হয়েছে, আপনি সেভাবে অটল থাকুন। যারা তওবা করে আপনার সঙ্গে রয়েছে এবং ধর্মের বেষ্টনি থেকে বিন্দুমাত্রও দূরে সরে যায়নি, তারাও অবিচল থাকুক। নিঃসন্দেহে আল্লাহতায়ালা তোমাদের সমস্ত কর্ম পর্যবেক্ষণ করেন। যারা জুলুম করে, তাদের পথে আকৃষ্ট হয়ো না। তোমরা তাদের প্রতি ঝুঁকিও না। না হয় তোমাদেরকে জাহান্নামের আগুন স্পর্শ করবে। আল্লাহ ছাড়া তোমাদের কোনো বন্ধু নেই। আর তোমাদেরকে তখন কোনো সাহায্যও করা হবে না।’ (সুরা হুদ : আয়াত- ১১২-১১৩)। উল্লিখিত আয়াতদুটির প্রথম আয়াতে রাসুল (সা.) ও গোটা মুসলিমজাতিকে দুটি নির্দেশ দেয়া হয়েছে ১. দীনের ওপর অটল অবিচল থাকো।দ্বিতীয় আয়াতে সীমাতিক্রমকারীদের পথে পরিচালিত না হবার নির্দেশ, আর তাদের পথের প্রতি আকৃষ্ট হবার জন্য জাহান্নামের ভয় দেখানো হয়েছে। আয়াতদুটিতে নির্দেশিত দৃঢ় থাকা, আর সীমাতিক্রম না করার অর্থ মূলত একটা অপরটার জোরালো নির্দেশস্বরূপ। কেননা দৃঢ় থাকার মানে হলো ধর্মের ওপর সঠিক পন্থায় অবিচল থাকা। যা বাড়াবাড়ি ছাড়াই সম্ভব। সেজন্য ধর্মের গন্ডি থেকে বাইরে না যাওয়াটা আবশ্যক হয়ে পড়ে।

৪. এটি আল্লাহর নির্ধারিত সীমারেখা। সুতরাং তা অতিক্রম কোরো না। যারা অতিক্রম করে, তারা-ই প্রকৃত জালেম (সীমালঙ্ঘনকারী)।’ (সুরা বাকারা : আয়াত-২২৯)। এই আয়াতেও ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করা ও ধর্মের সীমারেখা থেকে বাইরে বেরোনো থেকে নিষেধ করা হয়েছে।

যারা ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করে, তাদেরকেই জালেম সাব্যস্ত করা হয়েছে। ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করার নিন্দা ও খারাপ দিক নিয়ে জানার জন্য পবিত্র আল কোরানের এই আয়াত কয়টাই যথেষ্ট নয়কি ?

সুফী মোহাম্মদ আহসান হাবীব,
লেখক ও তাসাওউফ গবেষক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *