October 1, 2019

মুক্তিযুদ্ধের প্রায় ১৪ বছর পর ১৯৮৫ সালে জন্মগ্রহণ করে মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তিতে ক্ষুব্ধ সংসদীয় কমিটি।

মুক্তিযুদ্ধের প্রায় ১৪ বছর পর ১৯৮৫ সালে জন্মগ্রহণ করে মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তিতে ক্ষুব্ধ সংসদীয় কমিটি। একই সঙ্গে কীভাবে ওই ব্যক্তি মুক্তিযোদ্ধা হলেন তা খতিয়ে দেখতে আদালতের শরণাপন্ন হওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। এ সময় কমিটিকে জানানো হয়, সরকারের অঙ্গীকার অনুযায়ী সঠিক ও প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরির কাজ চলছে। এজন্য সারা দেশে ৪৭০টি বাছাই কমিটি কাজ করছে। ইতিমধ্যে ৩৭৫টি কমিটি প্রতিবেদন দিয়েছে। তবে এখনো ৯৫টি কমিটি কাজ শেষ করতে পারেনি। হাই কোর্টে রিট পিটিশনসহ অন্যান্য কারণে তালিকা চূড়ান্ত করতে বিলম্ব হচ্ছে বলে কমিটিকে জানানো হয়। সংসদ ভবনে গতকাল অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায় এসব তথ্য জানানো হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি শাজাহান খান। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, রাজিউদ্দিন আহমেদ, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম, কাজী ফিরোজ রশীদ ও ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল বৈঠকে অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *