June 18, 2024, 2:54 pm

তথ্য ও সংবাদ শিরোনামঃ
শতভাগ বেতন-বোনাস নিশ্চিত করল ময়মনসিংহ ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ ভালুকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ ঈদ যাত্রা নিরাপদ করতে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে, সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী লায়ন মো: গনি মিয়া বাবুল বঙ্গবন্ধুর আদর্শের জাগ্রতপ্রাণ সিএমপির আকবরশাহ্ থানার অভিযানে মাদক মামলায় গ্রেফতার ০১ ফেনীর খামার থেকে ১৩ গরু লুটে জড়িত দুজন চট্টগ্রামে গ্রেপ্তার। চবিতে নির্জন জায়গায় ছিনতাইয়ের কবলে বিএমএ শিক্ষার্থী। ত্বক ছাড়াও শরীরের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাবার শশা পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে লায়ন গনি মিয়া বাবুল এর শুভেচ্ছা ভালুকায় ২টি চোরাই পিকাপ গাড়ীসহ চক্রের ৫ সদস্য আটক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষক চিকিৎসক-ছাত্র ছাত্রীদের মিলনমেলা। ঈদুল আজহায় যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করলে পরিবহন মালিক ও সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শিশুদেরকে দেশীয় ফল খাওয়ার প্রতি উৎসাহিত করতে হবে, লায়ন গনি মিয়া বাবুল সবার উপরে মায়ের আঁচল তাহার উপরে নাই ২ নভেম্বর বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি স্বদেশ বিচিত্রা সম্মাননায় ভূষিত হবেন। প্রশাসনে নীতি বাস্তবায়নে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের লোক না রাখতেই মুক্তিযোদ্ধা কোটার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে স্বাধীনতা বিরোধীরা কুলাউড়া বিএনপির ৩ নেতার মুক্তি। এড আবেদ রাজার অভিনন্দন। ত্রিশালে দস্যুতা মামলার ৬ আসামী গ্রেফতার সহ গাড়ি উদ্ধার ভালুকায় ভূমিসেবা বিষয়ক জনসচেতনতামূলক সভা শরীয়তপুরে ২০৯টি পরিবারসহ সারাদেশে ৫ম ধাপে ১৮,৫৬৬ পরিবারকে জমি ও গৃহ হস্তান্তর করলেন প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সোয়া তিন কোটি টাকার উন্নয়ন কাজে ঘুষ দিতে হয়েছে ৬১ লাখ টাকা! কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি মানুষের কল্যাণে এই বাজেট নয়, তৈমুর আলম খন্দকার ঝড়ো হাওয়ায় মরা গাছের ডাল ভেঙে পড়ে পথচারীর মৃত্যু। গলি থেকে রাজপথ বৃটেনের প্রধান মন্ত্রীর স্ত্রীর উত্থানের নেপথ্যে এক বাঙালি মহিলার অবদান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে মহৎ ব্যক্তিদের মিলনমেলা ২০২৪-২৫ সালের জাতীয় বাজেট প্রসঙ্গে একটানা ৩ দিন বৃষ্টির পূর্বাভাস আঁধারে আলো, অর্পিতার অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরার ইতিহাস বাংলাদেশের উপকূল অঞ্চল রক্ষায় টেকসই বেড়িবাধ ও সবুজ বেষ্টনী এবং ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ত্রিশাল থানা পুলিশের অভিযানে ০৩টি চোরাই গরুসহ গ্রেফতার ৩

শীঘ্রই বাজারে আসছে কাঁচকি মাছের চানাচুর, কুড়কুড়ে বাদাম ও তিলের বার।

শীঘ্রই বাজারে আসছে কাঁচকি মাছের চানাচুর, কুড়কুড়ে বাদাম ও তিলের বার।

কাঁচকি মাছ পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ দেশি প্রজাতির কাঁটাযুক্ত, খুব ছোট ও প্রায় স্বচ্ছ একটি মাছ। মাছটি দেশের নদ-নদী, খাল-বিলে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। আকারে ছোট ও কাঁটাযুক্ত হওয়ায় অনেকেই এটি খেতে পছন্দ করেন না। বিশেষ করে ছোট বাচ্চারা খেতে চায় না।

বিকল্প উপায়ে তাদের সেই পুষ্টি গ্রহণের উপায় উদ্ভাবন করেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) ফিশারিজ টেকনোলজি বিভাগের একদল গবেষক। প্রক্রিয়া করে তারা তৈরি করেছেন কাঁচকি মাছের চানাচুর, কুড়কুড়ে বাদাম ও তিলের বার। সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে গবেষণাটি পরিচালিত হয়। গবেষক দলের প্রধান ফিশারিজ টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ নুরুল হায়দার ও সহযোগী গবেষক হিসেবে ছিলেন একই বিভাগের প্রভাষক মো. মোবারক হোসেন।

ড. মুহম্মদ নুরুল হায়দার বলেন, কাঁচকি মাছে শরীরের জন্যে প্রয়োজনীয় ক্যালসিয়াম, প্রোটিন ও ভিটামিন ‘এ’বিদ্যমান। হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক ও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে কাঁচকি মাছ গুরুত্বপূর্ণ। শিশুসহ সকল বয়সের মানুষের চানাচুর এবং বার জাতীয় খাবার খুব পছন্দনীয়। দুটি ভিন্ন ক্যাটাগরিতে ৬টি পণ্য উৎপাদন করেছি। ক্যাটাগরি-১ এর পণ্যগুলো মূলত চানাচুর জাতীয় অন্যদিকে ক্যাটাগরি-২ এর পণ্যগুলো মূলত কুড়কুড়ে বাদাম ও তিলের বার (যা স্থানীয়ভাবে তিল বাদাম তক্তি হিসেবে পরিচিত) তৈরি করা হয়েছে। এতে এসব মুখরোচক খাবারে সাথে মাছের পুষ্টিও গ্রহণ করতে পারবে।

মো. মোবারক হোসেন বলেন, মুখরোচক খাবারে প্রয়োজনীয় পুষ্টিমান বৃদ্ধির লক্ষ্যেই আমরা মূলত গবেষণাটি প্রকল্প সম্পন্ন করেছি। ছোট মাছের কাঁটা খেতে হবে চিবিয়ে। এতে পর্যাপ্ত পরিমাণ ক্যালসিয়াম পাওয়া যাবে। অন্যদিকে গর্ভবতী মা ও দুগ্ধদানকারী মায়ের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টির যোগান দিয়ে থাকে এ কাঁচকি মাছ।

গবেষকদল বলেন, মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ফিশ নিউট্রিশন ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করে দেখা যায়, চানাচুর জাতীয় পণ্যগুলোতে গড়ে ৪-৫ % ময়েশ্চার, ২৬-৩০% লিপিড, ১৮-২২% প্রোটিন, ৫% মিনারেল, ২% ফাইবার এবং ৩৯-৪২% কার্বোহাইড্রেট রয়েছে। যেখানে সাধারণ চানাচুরে প্রোটিন থাকে ১২-১৩%। বার জাতীয় পণ্যগুলোতে ২০-২২ % ময়েশ্চার, ১৩-১৯% লিপিড, ১৩-১৫% প্রোটিন, ১২-১৫% মিনারেল, ২-৩% ফাইবার এবং ৩২-৩৪% কার্বোহাইড্রেট পাওয়া যায়।

তিল ও বাদামের পণ্যগুলো তৈরি করা হয় বাদাম, মাছ, তিল ও গুড়ের সমন্বয়ে। প্রথমে উপাদানগুলো হাইজেনিক পদ্ধতিতে শুষ্ক করে নেওয়া হয়। যেখানে মাছ, তিল ও বাদাম প্রথমে ভেজে নেওয়া হয়। মাছগুলো মিডিয়াম তাপমাত্রায় ভেজে নেওয়া হয়। এতে মাছগুলো মচমচে হবে। পরে আখের গুড়ের সাথে মিশিয়ে এসব বার তৈরি করা হয়। অন্যদিকে বাজারের তৈরি চানাচুরের সাথে প্রক্রিয়াকৃত মাছ মিশিয়ে তৈরি করা হয়েছে চানাচুর। মাছ দিয়ে তৈরি এসব পণ্যে পরবর্তীতে মাছে কোনো গন্ধ থাকে না। জিপার ব্যাগে পণ্যগুলো ২ মাসের বেশি সময় পর্যন্ত ভালো থাকে বলে জানান গবেষক দলের প্রধান নুরুল হায়দার।

পণ্যগুলোর বাজার মূল্য কেমন হবে এমন প্রশ্নের জবাবে গবেষকেরা বলেন, সাধারণত বাজারে ২৫ গ্রামের যে পিনাট বার পাওয়া যায় তার দাম ১০ টাকা করে। তাই মাছের তৈরি বারের দাম ১৫-২০ টাকা করে হতে পারে। প্রতি কেজি মাছের তৈরি বার বিক্রি করে ব্যবসায়ীরা ৬০০ টাকা পর্যন্ত লাভ করতে পারবেন। অন্যদিকে মাছের চানাচুরের দাম নির্ধারণ হবে মাছের পরিমাণের উপর। চানাচুরে মাছের পরিমাণ যত বেশি হবে তার দামও ততো বেশি হবে।

এ বিষয়ে বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. ফাতেমা হক শিখা বলেন, এ ধরনের পণ্য বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করা গেলে দেশীয় পুষ্টিকর ছোট মাছগুলো সকল শ্রেণির ভোক্তাদের মাঝে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে। যা বিপুল জনগোষ্ঠীর খাদ্য ও পুষ্টির চাহিদা পূরণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

আমাদের প্রকাশিত তথ্য ও সংবাদ আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




All Rights Reserved: Duronto Sotter Sondhane (Dusos)

Design by Raytahost.com